সাহিত্যে সুফিয়া কামালের সৃজনশীলতা অবিস্মরণীয়

আলোচনা সভায় বক্তরা


কবি সুফিয়া কামালের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তরা বলেছেন, সাহিত্যে বেগম সুফিয়া কামালের সৃজনশীলতা অবিস্মরণীয়। শিশুতোষ রচনা ছাড়াও, গণতন্ত্র, সমাজ সংস্কার এবং নারীমুক্তিসহ বিভিন্ন বিষয়ে তাঁর লেখনী আজও পাঠককে অনুপ্রাণিত করে।

কবি বেগম সুফিয়া কামালের ১০৬তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তরা এ সব কথা বলেন। সুত্রাপুরস্থ দেবেন্দ্র দাস লেন সংগঠনের অস্থায়ী কার্যালয়ে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সংগঠনের কার্যকরী সভাপতি অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানের সভাপতিত্বে সভায় সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সৈয়দ হাসান ইমাম, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব পীযুষ বন্দোপাধ্যায়, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা, কন্ঠশিল্পী মনোরঞ্জন ঘোষাল, অভিনেত্রী পারুল আক্তার লোপা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বক্তারা বলেন, বাংলার প্রতিটি সংগ্রামে ছিল কবি সুফিয়া কামালের আপোসহীন এবং দীপ্ত পদচারণা। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ৭৫ এর ১৫ আগস্ট নির্মমভাবে হত্যা করে যখন দেশের ইতিহাস বিকৃতি শুরু হয় তখন সুফিয়া কামালের সোচ্চার ভূমিকা বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের গণতান্ত্রিক শক্তিকে নতুন প্রেরণা যুগিয়েছিল।

বক্তারা আরও বলেন, ৫২’র ভাষা আন্দোলন, ৬৯’র গণঅভ্যুত্থান, ৭১’র অসহযোগ আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধ এবং স্বাধীন বাংলাদেশের বিভিন্ন গণতান্ত্রিক সংগ্রামসহ শিক্ষা আন্দোলনে তার উপস্থিতি সাহসী ভূমিকা পালন করেছে।

এর আগে সকালে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে সকালে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানার নেতৃত্বে আজিমপুর কবরস্থানে কবি সুফিয়া কামালের কবরে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

Facebook Comments