অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের কোচ ড্যারেন লেহম্যান। ছবি : টুইটার

মান বাঁচানোর শেষ লড়াইয়ে অস্ট্রেলিয়া


নিজেদের ১৪০ বছরের ক্রিকেট ইতিহাসে এমন লজ্জার মুখোমুখি কখনই হয়নি অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটে দল। র‍্যাংকিংয়ে নয় নম্বরের দলের বিপক্ষে কখনই হোয়াইটওয়াশের শঙ্কা চেপে ধরেনি তাদের। কিছুদিন আগেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ হতে হয়ে বিশ্বক্রিকেটের অন্যতম প্রভাশালী দলটিকে। তবে সেবারও এতটা সমালোচনার মুখে পড়তে হয়নি তাদের। তবে এবার বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্ট হেরে দেশে-বিদেশে খুবই সমালোচিত হচ্ছেন স্মিথ-ওয়ার্নাররা। অস্ট্রেলীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর কড়া সমালোচনা শুনতে হয়েছে তাদের। তাই দ্বিতীয় টেস্ট জিতে নিজেদের মান বাঁচাতে চায় সফরকারী দলটি। কোচ ড্যারেল লেহম্যানের কথায় তেমনটাই বোঝা গেল।

লেহম্যান বলেন, ‘যেভাবে সমালোচনা হচ্ছে তাতে ছেলেরা খুব কষ্ট পাচ্ছে। তবে না জিততে পারলে এটা মেনে তো নিতেই হবে। হার কেউ দেখতে চায় না। তবে তবে ঘরের মাঠে বাংলাদেশকে খেলা কঠিন। আপনি যদি অন্য দলগুলোর দিকে তাকিয়ে দেখেন, তাহলে বুঝবেন প্রতিপক্ষের মাটিতে জেতা সব সময়ই কঠিন।’

তবে এখন সামনের দিকে তাকাতে চান সাবেক এই অলরাউন্ডার। তিনি বলেন, ‘ছেলেরা খুব বেশি ভুল করেছে এটা বলা ঠিক হবে না। প্রথম ইনিংসে কিছু রান কম হয়েছিল আমাদের আর দ্বিতীয় ইনিংসে চাপটা বেশি নিয়ে ফেলেছিল ব্যাটসম্যানরা। তবে এখন ঘুরে দাঁড়াতে হবে। সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে, ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে মাঠে নামতে হবে আমাদের।

শোনা যাচ্ছে, চট্টগ্রাম টেস্টে তিন স্পিনার নিয়ে মাঠে নামতে পারে সফরকারীরা। নাথান লায়ন, অ্যাশটন অ্যাগারের সঙ্গে স্টিফেন ও’কিফকেও মাঠে নামাতে পারেন ড্যারেল লেহম্যান। এ প্রসঙ্গে অসি কোচ বলেন, ‘আমরা প্রথমে উইকেট ও কন্ডিশন দেখব। এরপর দুজন পেসার বা তিন স্পিনার খেলানোর কথা ভাবা হবে। তবে দলের জন্য যেটা ভালো হবে সেটাই করব আমরা।’

অস্ট্রেলীয় গণমাধ্যমগুলো থেকে জানা যাচ্ছে, দ্বিতীয় টেস্টের দল থেকে উসমান খাজা ও ম্যাথু ওয়েডকে বাদ দিতে পারে অস্ট্রেলিয়া। ওয়েডের জায়গায় হ্যান্ডসকম্ব ও খাজার বদলে হিল্টন কার্টরাইটকে দলে নেওয়া হতে পারে। তেমনটার আভাস দিলেন ড্যারেন লেহম্যানও। অসি কোচ বলেন, ‘১৪ জনের দল নিয়ে আমরা বাংলাদেশে এসেছি। সিরিজের এখন যা অবস্থা তাতে করে যে কেউই মূল একাদশে থাকতে পারে।’

Facebook Comments