ব্র্যাকের শিক্ষার্থীদের আন্দোলন স্থগিত


ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের আশ্বাসে চলমান আন্দোলন স্থগিত করেছেন শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীদের পক্ষে এ ঘোষণা দিয়েছেন আইন বিভাগের ১১ তম সেমিস্টারের ছাত্র শেখ নোমান পারভেজ।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আগামী মঙ্গলবার বিকাল ৫টার মধ্যে যদি শিক্ষার্থীদের ৫ দফা দাবি না মানা হয় তাহলে ফের আন্দোলনে নামবেন শিক্ষার্থীরা।’ এসময় তিনি ৫ দফা দাবিতে শুরু হওয়া অনশনসহ সব আন্দোলন সাময়িকভাবে স্থগিত ঘোষণা করেন।

ঘোষণায় শেখ নোমান পারভেজ শিক্ষার্থীদের ৫ দফা দাবি তুলে ধরেন। তাদের দাবিগুলো হচ্ছে-

১. শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় অভিযুক্ত রেজিস্ট্রার মো শাহুল আফজাল, রেজিস্ট্রার অফিসের কর্মকর্তা জাবেদ, রাসেল, ও স্টাফ মাহিকে তদন্তের স্বার্থে সাময়িক বরখাস্ত করতে হবে এবং তদন্তের প্রতিবেদন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে হবে।
২. ছাত্রদের শারীরিক নির্যাতন ও ছাত্রীদের ওপর যৌন নির্যাতনকারীদের ভিডিও ফুটেজ থেকে শনাক্ত করে বহিষ্কার করতে হবে।
৩. পাবলিক নোটিসের মাধ্যমে আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না, এমন ঘোষণা দিতে হবে।
৪. আন্দোলনে ক্লাস বর্জনের আহ্বান থাকছে না।
৫. আমাদের এসব দাবি ৩ কর্ম দিবসের (মঙ্গলবার বিকাল ৫টা পর্যন্ত) মধ্যে পূরণ করতে হবে।

এসময় তিনি আরও বলেন, ‘এ সব দাবি না মানা হয়, তাহলে সময় পার হওয়ার পর আবারও আন্দোলন শুরু করা হবে।’

উল্লেখ্য, গত রবিবার (৩০ জুলাই) ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মাহমুদ শাহুল আফজাল ও সহকারী রেজিস্ট্রার মো. মাহিউদ্দিন ও জাভেদ রাসেলের বিরুদ্ধে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব ল বিভাগের শিক্ষক ফারহান উদ্দিন আহম্মেদকে মারধরের অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনার জেরেই আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা।

/ বাংলাট্রিবিউন

Facebook Comments