নবীগঞ্জে পাগলীর সন্তান প্রসব, ফেসবুকসহ উপজেলাজুড়ে তোলপাড়


হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ শহরে মানসিক ভারসাম্যহীন এক যুবতী সন্তান প্রসব করেছে। এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ উপজেলাজুড়ে বেশ তোলপাড় চলছে।

তবে নবজাতকটির পিতৃপরিচয় পাওয়া যায়নি। কার কুকর্মের ফসল এ নবজাতক শিশুটি কেউ বলতে পারছে না।

ভারসাম্যহীন এ যুবতীর ইজ্জত নষ্ট করায় অনেকেই লম্পটকে ধিক্কার জানিয়েছেন এবং এ ঘটনায় বিকৃত রুচির পরিচয় দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন। অনেকেই আবার মানবাধিকার চরম লঙ্ঘিত হয়েছে বলে মন্তব্য করছেন।

স্থানীয়রা জানান, অনেক দিন ধরেই নবীগঞ্জ শহরে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়ায় নাম-পরিচয়হীন ওই যুবতী, যাকে সবাই ‘পাগলী’ নামেই ডাকে। কেউ জানে না তার কোনো নাম ঠিকানা। গত ৬ জুলাই ভোরে নবীগঞ্জ শহরের ওমর ফারুক মসজিদের পাশে হঠাৎ পাগলীর চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে যান। সকাল ৬টার দিকে পাগলীর গর্ভ থেকে জন্ম নেয় ফুটফুটে এক ছেলে সন্তান।

এ সময় যুবতীর শারীরিক অবস্থা খারাপ দেখে স্থানীয় লোকজন মা-ছেলেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে পাগলীর সন্তান প্রসবের খবর ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে শত শত মানুষ ভিড় জমায় পাগলীকে দেখার জন্য।

এ অবস্থায় হবিগঞ্জের নিঃসন্তান এক দম্পত্তি নবজাতককে দত্তক নেন। তবে মানসিক ভারসাম্যহীন ওই যুবতী কোন লম্পটের লালসার শিকার হয়েছেন তা কেউই জানেন না।

এমনকি সবাই শুধু ধিক্কারই জানিয়েছেন। এদিকে, এক পথশিশু জানিয়েছে, কয়েকদিন পূর্বে স্বাস্থ্যবান ও কম বয়সী ফর্সা রঙের এক ছেলে ওই পাগলীকে ফুসলিয়ে কোনো জায়গায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতে দেখেছে। মানসিক ভারসাম্যহীন ওই পাগলী নিষ্ঠুরতার শিকারে স্বম্ভিত গোটা নবীগঞ্জবাসী।

সূত্র: প্রতিদিনের সংবাদ

Facebook Comments