দেশে ফিরে মায়ের পচাগলা মৃতদেহ পেলেন প্রবাসী ভারতীয় প্রকৌশলী


ভারতের মুম্বাইতে এক প্রকৌশলী আমেরিকা থেকে দীর্ঘদিন বাদে দেশে ফিরে তাদের অ্যাপার্টমেন্টে মায়ের পচাগলা মৃতদেহ আবিষ্কার করেছেন।

মৃত আশা সাহনি বহুতল সোসাইটির ওই ফ্ল্যাটবাড়িতে একাই থাকতেন – তবে তিনি কতদিন ধরে সেখানে মরে পড়ে আছেন তা পুলিশ এখনও জানাতে পারেনি।

ভারতে এমন লক্ষ লক্ষ বয়স্ক বাবা-মা আছেন যাদের ছেলেমেয়েরা পাশ্চাত্যের দেশগুলোতে প্রবাসী জীবন কাটাচ্ছেন – কিন্তু ভারতে তাদের দিন কাটছে প্রবল একাকীত্ব আর নি:সঙ্গতার মধ্যে।

ভারতে মানুষের গড় আয়ু বাড়ছে, পড়াশুনো করে বিদেশে পাড়ি দেওয়ার প্রবণতাও বাড়ছে – আর সেই সঙ্গে এই একাকীত্ব ব্যাপক এক সামাজিক সমস্যার চেহারা নিচ্ছে।

মুম্বইয়ের লোখন্ডওয়ালার অ্যাপার্টমেন্টে তেষট্টি বছরের আশা সাহানিকে যে চোখে পড়ছে না – সেটা গত কয়েকমাসে তার প্রতিবেশীরা, ধোপা, কলের মিস্ত্রি বা মুদি দোকানদার কেউই খেয়াল করেননি।

মার্কিনপ্রবাসী ছেলের সঙ্গেও তার যোগাযোগ হয়নি বহুদিন। অগত্যা তিনি মারা যাওয়ার পরেও দেহটা পড়ে ছিল ফ্ল্যাটের ভেতরেই – এবং বয়স্ক মানুষদের নিয়ে কাজ করা ভারতের সবচেয়ে বড় এনজিও হেল্পএজ ইন্ডিয়ার মতে এই ধরনের ঘটনা আজকাল মোটেও বিরল নয়।

/ বিবিসি

Facebook Comments