তেতুল ভূতের সাথে লড়াই

মীর সোহেল রানা


বাড়ির পাশে তেতুল গাছে একটা ছিল ভূত
তার নীচে সব ছেলে মেয়ে রোজ খেলে কুত কুত।
গাছের পাশেই পুকুর ছিল, পুকুর ভরা মাছ
সেই পুকুরে ছায়া ফেলে ভূতু তেতুল গাছ।
ভূতটা রোজই মাছ খেয়ে যায়, পেট ভরে খায় জল
শরীর ফুলে ঢোল হয়ে যায় পেট ফুলে হয় বল।
সামলাতে ভূত তেতুল খাবে, খুব বেশী টক, টক
ভূতের পেটে সাঁতার কেটে মাছ করে ঠক ঠক।
মাছগুলো আর বশ মানেনা, পেট করে টন টন
রাত দুপুরে উঠান জুড়ে ভূত করে হন টন ।
মাছের উপর থেকে ভূতের মন উঠে যায়, মন
মাছ খাবে না মানুষ খাবে, ভূত করে তাই পণ।
এক বিকেলে সবার সাথে খেলছিল বুলবুল
দেখতে খানিক নাদুস নুদুস, গাল দু’টো তুল তুল।
তাকে দেখে তেতুল ভূতের জিভ করে লক লক,
জিভ বেয়ে তার গড়ায় পানি চোখ করে চক চক।
ভূতটা হঠাৎ নামলো নীচে, নামলো তুফান, ঝড়
তেতুল গাছের গোটা কয়েক ডাল ভাঙ্গে মড় মড়।
ভূত যখনি সড়াৎ জোড়ে দেয় বুলুকে টান
খুব জোড়ে সে চেঁচিয়ে উঠে ফাটায় ভূতের কান।
একটা শিশু এগিয়ে আসে, সবাইকে দেয় ডাক
ভূতের সাথে লড়াই হবে, ভাঙ্গবো ভূতের নাক।
সকল শিশু ঝাপিয়ে পড়ে, সবাই পেটায় ভূত
আজকে সবাই ভূত পেটাবে, খেলবে না কুত কুত।

Facebook Comments